কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ১০০ কেজি নিষিদ্ধ ঘোষিত পিরানহা মাছ আটক করে তা মাটিতে পুতে ধ্বংস করা হয়েছে এবং মানুষ খেকো এই মাছ রাখার দায়ে এক ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।


জানাগেছে, সোমবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভীত্তিতে উপজেলার বঙ্গ সোনাহাট ইউনিয়নের সোনাহাট বাজারের পাশে একতা মাছের আড়তে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা। অভিযানে ১০০ কেজি নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ উদ্ধার করা হয় এবং মাছ ব্যবসায়ী নসকর আলীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এসময় স্যানিটারি ইন্সিপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আবু বক্কর সিদ্দিক, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আদম মালিক চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। পরে উদ্ধারকৃত আড়াই মণ পিরানহা মাছ উপজেলা প্রশাসন সংলগ্ন মাঠে মাটি চাপা দিয়ে ধ্বংস করা হয়।

 


মৎস্য কর্মকর্তা আদম মালিক চৌধুরী বলেন, পিরানহা মাছ মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। এটি রাক্ষসী মাছ হিসেবে পরিচিত। তাই এ ক্ষতিকারক মাছ চাষ ও বিক্রি নিষিব্ধ। ক্ষতিকারক পিরানহা মাছ সম্পর্কে জনসচেতনা সৃষ্টিতে হাটবাজারে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা জানান মাঝে মধ্যে বাইরে এলাকা থেকে এক শ্রেণির ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার লোভে উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে রূপচাঁদা বলে নিষিদ্ধ পিরানহা মাছ বিক্রি করে প্রতারণা করে আসছে এমন অভিযোগের ভীত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয় এবং ভোক্তা অধিকার আইনে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে জরিমানা আদায় করা হয়।


 

 2,061 total views,  1 views today

বাংলা English